স্বামী-স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ নিয়ে ভ্রান্ত ধারণা!

সঠিক জ্ঞানের অভাবে সমাজে নানা ধরনের ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত হয়ে পড়ে। মূলত তথ্যের যাচাই বাছাই না করার কারণে বিভিন্ন ভুল ধারণা আমাদের সমাজে গেঁখে বসে। তেমনই একটি প্রচলিত ভুল ধারণা— স্বামী-স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ এক হলে কোনো সমস্যা হয় কি? অনেকের মধ্যে এমন অজানা একটি প্রশ্ন থেকেই যায়। আবার অযথা দুশ্চিন্তায় থাকেন অনেকেই। তবে সত্যিকার অর্থে এবং ডাক্তারদের মতে, ‘এটি কোনো সমস্যাই হয় না।’

মেডিকেল জার্নালের তথ্যমতে, সারা পৃথিবীর ৩৬ শতাংশ “ও” গ্রুপ, ২৮ ভাগ “এ” গ্রুপ, ২০ শতাংশ “বি” গ্রুপ রক্তের মানুষ রয়েছে। কিন্তু এশিয়াতে প্রায় ৪৬ ভাগ মানুষের রক্তের গ্রুপ “বি”। এশিয়ায় নেগেটিভ ব্লাড গ্রুপ ৫ শতাংশ, সেখানে ইউরোপ আমেরিকাতে প্রায় ১৫ শতাংশ। যেখানে উপমহাদেশে সিংহভাগ মানুষের রক্তের গ্রুপ ‘বি’। সেখানে স্বামী-স্ত্রীর রক্তের গ্রুপের মিল হবে সেটাই স্বাভাবিক। এতে কোনো সমস্যা হয় না।

কিন্তু যদি স্ত্রীর নেগেটিভ রক্তের গ্রুপ থাকে এবং স্বামীর পজিটিভ গ্রুপ থাকে তাহলে সমস্যা হয়ে থাকে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। যাকে Rh Isoimmunization বলে। সেটারও সহজ চিকিৎসা বা টিকা আছে।

আরো একটি ভ্রান্ত ধারণা সমাজে প্রচলিত আছে, বাবা মায়ের রক্তের গ্রুপ এক হলে বাচ্চার থ্যালাসেমিয়া হয়। এটাও সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। কারণ, থ্যালাসেমিয়া রোগ ক্রোমোজোম এবনরমালিটি থেকে হয়। তাই,যে কোন ধরনের ভ্রান্ত ধারণা থেকে নিজেকে সচেতন রাখুন। সবাইকে ভালো রাখার চেষ্টা করুন।

সূত্র : মেডিকেল জার্নাল