দশমিনায় মা’কে বাচাঁতে শিশু সন্তানের আকুতি

দশমিনা প্রতিনিধি ঃ পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার ৫০ শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের চিকিৎসাধীন মাকে বাচাঁতে সাইফুল (৯), নাইম (১১) ও খলিলুর রহমান (১৩) অসহায় তিন শিশু সন্তানদের আকুতিতে ভারি হয়ে উঠেছে হাসপাতাল প্রাঙ্গন। উপজেলার দক্ষিন আদমপুর গ্রামে অসহায় নারী রেহেনা বেগম (৩৮) ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পরছে। তার চিকিৎসায় ভিটাবাড়ি ছাড়া চাষাবাদের ফসলী জমি বিক্রয় করে নিঃশ্ব হয়ে পরেছেন স্বজনরা। অর্থাভাবে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত রেহেনা বেগমের স্বজনরা চিকিৎসা করাতে পারছে না। অর্থ যোগাতে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন রেহেনার পরিবারবর্গ। ওই শিশুরা প্রধানমন্ত্রী ও বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। ক্যান্সার আক্রান্ত রোগী দেশের বিত্তবানদের আর্থিক সহযোগীতায় চিকিৎসা চালিয়ে বেঁচে উঠতে পারেন তিন সন্তানের জননী রেহেনা বেগম।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিন আদমপুর গ্রামের কাঞ্চন গাজী বাড়ির দিনমজুর ইউসুব খাঁর স্ত্রী মোসাঃ রেহেনা বেগম ২০১৫সালের দিকে পেট ব্যাথায় আক্রান্ত হয়ে দশমিনা উপজেলা ৫০শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের চিকিৎসার জন্য ভর্তি হন। স্থানীয় চিকিৎসকরা রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় বরিশাল সেবাচিতে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করেন। রোগীর অবস্থা গুরুত্বর থাকায় বরিশালস’ ফেরার হেলথ ডায়াগনিষ্ট ল্যাব নামক ক্লিনিককে গত ১১ এপ্রিল ২০১৫ইং তারিখে শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের সহকারী অধ্যাপক (সার্জারী) ডাঃ জহিরুল হক মানিক এর শরনাপন্ন হন। দায়িত্বরত ডাক্তার জহিরুল হক মানিক বিভিন্ন পরীক্ষা নিরিক্ষার মাধ্যমে আক্রান্ত রোগী মোসাঃ রেহেনা বেগমের পেটের মধ্যে টিউমারের অপারেশন করেন। এতে রেহেনার পরিবারবর্গ চিকিৎসার খরচ দেন ৭৫,০০০/- (পচাত্তর হাজার) টাকা। অপারেশনের পর কয়েক মাস ভাল থাকলেও পূর্ণরায় গুরুত্বর অসু্স্থ্য হয়ে পরেন রেহেনা। যার পরিপ্রেক্ষিতে রেহেনা ঐ বছরের ১৭ আগষ্ট বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডাঃ মহসীন হাওলাদারের শরনাপন্ন হয়ে চিকিৎসা নেন। ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডাঃ মহসীন হাওলাদারের দেওয়া বিভিন্ন পরীক্ষা নিরিক্ষায় রির্পোটে রেহেনা বেগমের পেটের টিউমার থেকে ক্যান্সারের আক্রান্ত হন বলে চিকিৎসক জানান।

 

এতেও খরচ করেন ৪০.০০০/- ( চল্লিশ হাজার ) টাকা। ক্যান্সার রোগের চিকিৎসা চালিয়ে গেলে অসহায় গরীব রেহেনা বেগম পূর্ণরায় সুস’্য জীবন ফিরে পেতে পারেন এমন কথা বলেন চিকিৎসকরা। চিকিৎসকদের পর্রামশক্রমে রেহেনা বেগমের স্বজনরা চিকিৎসা চালিয়ে ভিটামাটি ছাড়া ফসলী জমি বিক্রি করে নিঃস্ব হয়ে পরেছেন। মায়ের রোগমুক্তি ও চিকিৎসার জন্য দেশের প্রধানমন্ত্রী ও বিত্তশালী ব্যক্তিদের কাছে নাবালক শিশুরা আকুতি জানান। আর্থিক সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা জনতা ব্যাংক লিমিটেড, দশমিনা শাখা, সঞ্চয়ী হিসাব নং – ৪৫৬১।

Comments

comments